নারী পাচারকারীর সন্ধান দিয়ে পেয়ে যান ২০ হাজার টাকা পুরষ্কার!

যুবকের নামঃ মুরাদ কাজী
যুবকের পিতার নামঃ কালাম কাজী
যুবকের মাতার নামঃ আবিরন নেসা
গ্রামঃ ঘোষপুর,
থানাঃ মোহাম্মদপুর,
জেলাঃ মাগুরা।
অসহায় মেয়েটির পরিবার দি উম্মাহ টিভিকে জানাই যুবকটি নারী ও শিশু পাচারকারী। যুবকটির নামে নারী ও শিশু নির্যাতনের দুটি মামলা রয়েছে মাগুরা সদর থানায়। বর্তমান যুবকটি একটি মামলার ওয়ারেন্ট আসামি। অসহায় মেয়েটির পরিবার আরোও জানান মুরাদ কাজী ও তার চাচাতো ভাই মনিরুল ইসলাম গত ০৬/০৪/২০২১ তারিখে প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার সময় তাদের মেয়েকে অপহরণ করে মোটরসাইকেলে করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। স্থানীয় দুজন লোক ঘটনাটি দেখার পর মেয়েটিকে চিনতে পেরে মেয়েটির পিতা ও মাতাকে অভিহিত করে।

স্থানীয় এক ব্যক্তি দি উম্মাহ টিভিকে জানান, মেয়েটির পিতা ও ভাইয়েরা ঘটনাটি জানার পর এক পর্যায়ে যুবকটির পরিচয় জানতে পারে। মেয়েটির পিতা ও ভাই ছেলের বাড়িতে যান। যুবকটির পিতা ও মাতার হাত ধরে কান্নাকাটি করলে ছেলের পিতা মাতা চাচা ও চাচাতো ভাইয়েরা সবাই বলে মেয়েটিকে দেওয়া যাবে না। মেয়েটির পিতা ও ভাইয়েরা কান্নাকাটি করতে করতে ছেলের বাড়ির পাশে চেয়ারম্যানের বাড়িতে যাই। চেয়ারম্যানের নাম পান্নু। ৫ নম্বর বালুদিয়া ইউনিয়ন। পান্নু চেয়ারম্যান ঘটনাটি জানার পর ছেলেটির পিতা-মাতা ও চাচাত ভাইদের কে জিজ্ঞাসাবাদ করে।

তারা চেয়ারম্যান কে বলে দেয় মামলা, যা করে করুক মেয়ে আমরা দিব না। তারপর মেয়েটির পিতা ও ভাইয়েরা অসহায় হয়ে চলে এসে মাগুরা সদর থানায় মামলা করে। 


মেয়েটি আজ পর্যন্ত বেঁচে আছে কিনা জানতে পারে নাই তার পরিবার। অসহায় মেয়েটির পরিবার ও মাগুরা সদর থানা পুলিশ জানান কোন সহৃদয় ব্যক্তি যদি ছেলেটির খোঁজ পেয়ে থাকেন তাহলে দ্রুত আইনের আওতায় আনতে সহায়তা করতে সবাইকে অনুরোধ করা হল।
এবং সন্ধানকারীকে ২০ হাজার টাকা পুরষ্কার দেওয়া হবে।


যোগাযোগের ঠিকানাঃ 01609179028

মন্তব্য করুন

নবীনতর পূর্বতন